বাস

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম বাস ভাড়া, লোকেশন, কাউন্টার নাম্বার ও জেলা পরিচিতি

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার বাস ভাড়া, লোকেশন ও কাউন্টার নাম্বার এখানে উপলব্ধ: আপনি কি ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যেতে চান?. আপনি কি বাসের মাধ্যমে যেতে চান?. তাহলে ফরিদগঞ্জ থেকে কোন কোন বাস চট্টগ্রামে যায় এবং সেই সকল বাসের ভাড়ার তালিকা ও কাউন্টার নাম্বার সহ বিস্তারিত তথ্য যদি জানতে চান তাহলে এই নিয়ে বন্ধ থেকে পুরো জানতে পারবেন. তাছাড়া এই নিবন্ধে ফরিদপুর থেকে চট্টগ্রামের দূরত্ব এবং কত সময় লাগে এবং কোন কোন পরিবহন সেখানে চলাচল করে সমস্ত তথ্য উপলব্ধ থাকবে.

আসুন তাহলে ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার সকল বাসের ভাড়ার তালিকা সময়সূচী ও কাউন্টার লোকেশন সহ বিস্তারিত তথ্য আপনাকে সহায়তা করবে এবং আপনি ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামের দূরত্ব ও সময়সূচী সম্পর্কে জানতে পারবেন।

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম এসি বাসের নাম ও ভাড়া তালিকা

আপনি যদি ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম এসি বাসে যেতে চান তাহলে দুইটি বাস পাবেন। আর এই বাস দুইটির নাম এবং টিকিটের মূল্য নিচের স্মরণে থেকে জানতে পারবেন।

পরিবহনের নাম টিকিটের মূল্য
জোনাকি সার্ভিস ৪৯০ টাকা
শাহী সার্ভিস ৪৯০ টাকা

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম নন এসি বাসের নাম ও ভাড়ার তালিকা

আপনি কি নন এসি বাসে ফরিদপুর থেকে চট্টগ্রাম যেতে চান এবং অল্প টাকায় যেতে চান?. তাহলে আপনি কোন কোন বাসে যাবেন এবং রাজনীতির নাম কি কি এবং টিকিটের মূল্য কত তা নিচে থেকে জেনে নিতে পারেন.

পরিবহনের নাম টিকিটের মূল্য
জোনাকি সার্ভিস ৪৪০ টাকা
শাহী সার্ভিস ৪৪০ টাকা

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার পরিবহন সমূহ:

আপনি যদি নতুন কিংবা পুরাতন হয়ে থাকেন এবং ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার পরিবহন অনুসন্ধান করেন থাকেন তাহলে আপনি জানতে পারবেন নিচের পরিবহনসমূহ ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামে যাওয়া যায় এবং এখানে নন এসি এবং এসি বাস রয়েছে

আপনি নিম্নোক্ত পরিবহন গুলোর মাধ্যমে ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যেতে পারবেন।

·        শাহী সার্ভিস পরিবহন ক্লিক করুন

·        জোনাকি সার্ভিস পরিবহন ক্লিক করুন

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামের দূরত্ব কত?

আপনি কি জানেন ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামের দূরত্ব কত?. তবে আপনি যদি নিয়মিত ফার্স্ট ক্লাস থেকে চট্টগ্রাম যেতে চান এবং এর দূরত্ব সম্পর্কে অনুসন্ধান করেন তাহলে আপনার জানা দরকার যে ফরিদপুর থেকে চট্টগ্রামের দূরত্ব ১৬৬.১ কিলোমিটার এবং এই দীর্ঘ পথ যেতে সময় লাগে ৪ ঘন্টা ২৮ মিনিট. তাহলে আপনার যাতায়াতে খুব সুবিধা হবে যদি দ্রুত এবং সময় জানা থাকে.

ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রামে যেতে কত সময় লাগে?

অনেকে গুগলে অনুসন্ধান করেন যে ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যেতে কত সময় লাগে তাদের জন্য আজ আমরা সঠিক সময়টা বের করেছি গুগল থেকে এবং এখানে তুলে ধরেছি যে ফরিদগঞ্জ থেকে চট্টগ্রাম যেতে ৪ ঘন্টা ২৮ মিনিট সময় লাগে এবং এর দূরত্ব হচ্ছে ১৬৬ দশমিক ১ কিলোমিটার

ফরিদগঞ্জ উপজেলার ম্যাপ

অনেকে ফরিদগঞ্জ উপজেলার মেয় অনুসন্ধান করেন এবং সহজে পেতে চান তাদের জন্য নিচে পরিকল্পনা উপজেলার ম্যাপটি সংযুক্ত করা হলো

চট্টগ্রাম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

চট্টগ্রাম যার পূর্ব নাম ইসলামাবাদ। চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক নাম পোর্ট গ্রান্ড। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সবার আছে চট্টগ্রাম। চট্টগ্রামের দক্ষিণ পূর্বে রয়েছে একটি বন্ধন নগরী শহর। বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামকে বলা হয়। পাহাড় সমুদ্র এবং উপত্যকায় ঘেরা চট্টগ্রাম শহর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য প্রাচ্যের রানী হিসেবে বিখ্যাত।

চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক স্থানসমূহ

  • লালদিঘি ও লালদিঘি ময়দান,
  • বদর আউলিয়ার দরগাহ
  • হযরত শাহ আমানত শাহ (রা:) এর দরগাহ
  • বায়েজিদ বোস্তামীর মাজার,
  • চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ভবন,
  • আদালত ভবন,
  • চেরাগী পাহাড়,
  • জে এম সেন হল,
  • প্রীতিলতার স্মৃতি স্মারক,পাহাড়তলী।
  • সাত মঠ

পার্ক, বিনোদন ও প্রাকৃতিক স্থান:

  • ফয়েজ লেক,
  • জাতি-তাত্ত্বিক জাদুঘর,
  • মুসলিম হল,
  • স্বাধীনতা পার্ক,
  • ডিসি হিল,
  • কর্ণফুলী শিশুপার্ক,
  • পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত,
  • পতেঙ্গা বাটারফ্লাই পার্ক,
  • ফয়েজ লেক ওয়াটার ল্যান্ড,
  • কাজির দেউরি জাদুঘর,
  • বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি,
  • বোটানিক্যাল গার্ডেন ও ইকো-পার্ক, সীতাকুণ্ড,
  • ভাটিয়ারী গল্ফ ক্লাব,
  • জাম্বুরি পার্ক
  • চুনতি অভয়ারণ্য – জাতিসংঘ পুরস্কার প্রাপ্ত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি,

স্মৃতিসৌধ ও স্মারক:

  • কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার,
  • কমনওয়েলথ ওয়ার সেমেট্রি চট্টগ্রাম।

ফরিদগঞ্জ সম্পর্কে তথ্য

ফরিদগঞ্জ বাংলাদেশের চাঁদপুরের একটি উপজেলা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের একটি জেলা। ১৯১৮ সালের ৭ই অক্টোবর ফরিদগঞ্জ থানায় রূপান্তর করা হয় এবং 1982 সালে একটি জেলায় পরিণত হয়। তবে চাঁদপুর জেলা সদর থেকে মাত্র ১৭ কিলোমিটার দূরে ফরিদপুর উপজেলা অবশিষ্।

ফরিদপুর উপজেলার আয়তন ২৩১.৫৬ বর্গ কিলোমিটার। ফরিদপুর উপজেলায় বর্তমানে একটি পৌরসভা এবং 15 টি ইউনিয়ন রয়েছে।

ঐতিহ্য ও ঐতিহাসিক নির্দশন

  • পর্তুগীজ দুর্গ, সাহেবগঞ্জ ( সাহেবগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের সাহেবগঞ্জ গ্রাম)
  • রূপসা জমিদার বাড়ি (ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা উত্তর ইউনিয়নের রূপসা গ্রামে)
  • লোহাগড় জমিদার বাড়ি
  • জমিদার (হাজী কামিজ উদ্দিন তপাদার,চান্দ্রা বাজারের দক্ষিণ পশ্চিমে শেখদি গ্রামে তপাদার বাড়ি)
  • লোহাগড় মঠ (চান্দ্রা বাজারের দক্ষিণ পশ্চিমে লোহাগড় গ্রামে)
  • কড়ৈতলী জমিদার বাড়ি (বাবুর বাড়ি)
  • শোল্লা জমিদার বাড়ি
  • ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্য (ফরিদগঞ্জ-রায়পুর রাস্তার মোড়ে)
  • ধানুয়া মিনি হাওর (ধানুয়া-গাজীপুর ব্রিজ)
  • ডাক বাংলো-বধ্যভূমি (গুদারাঘাট, ফরিদগঞ্জ থানা রোড)

কৃতি ব্যক্তি

  • লে. কর্নেল আবু ওসমান চৌধুরী (৮ নং সেক্টর কমান্ডার)
  • আমিন উল্লাহ শেখ (বীর বিক্রম)
  • আবুল হোসেন (বীর প্রতীক)
  • দেলোয়ার হোসেন (বীর প্রতীক)
  • দেলোয়ার হোসাইন নান্নু পাটোয়ারী-বীর মুক্তিযোদ্ধা
  • মোতাহার হোসেন পাটোয়ারী -সিআইপি, প্রতিষ্ঠাতা আম্বিয়া ইউনুস ফাউন্ডেশন,
  • খান বাহাদুর আবিদুর রেজা চৌধুরী, রাজনীতিবিদ ও সমাজকর্মী।
  • ওয়ালী উল্লাহ নওজোয়ান, গবেষক, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক ও শিক্ষক।
  • নূরেজ্জামান ভুঁইয়া, রাজনীতিবিদ ও শিক্ষক।
  • আইউব আলী খান, শিক্ষক, সমাজসেবক ও রাজনীতিবিদ।
  • আমিনুল হক মাস্টার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, ভাষাসৈনিক, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি থানা আওয়ামী লীগ, ৭১ এর থানা সংগ্রাম কমিটির সভাপতি, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, শিক্ষক, সমাজসেবক ও রাজনীতিবিদ
  • ফারুক আহমদ পাটোয়ারী
  • মোহাম্মদ আবদুল হাকিম
  • মোহাম্মদ বজলুল গণি পাটোয়ারী
  • আবদুল জব্বার পাটোয়ারী
  • এম এ মাওলানা আবদুল মান্নান, সাবেক ধর্ম মন্ত্রী, রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক।
  • শান্তনু কায়সার, সাহিত্যিক।
  • হাশেম খান (খ্যাতিমান চিত্রশিল্পী)
  • আলমগীর হায়দার (৪ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য)
  • লায়ন হারুনুর রশীদ, (সাবেক সংসদ সদস্য)
  • শামছুল হক ভূঁইয়া
  • এম সফিউল্লাহ (বীর মুক্তিযোদ্ধা,সাবেক সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ চাঁদপুর জেলা শাখা, মুক্তিযোদ্ধা পরবর্তী আওয়ামীলীগ থেকে নির্বাচিত প্রথম সংসদ সদস্য)
  • ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিবাহিনীর বেঙ্গল প্লাটুনের কমান্ডার এবং রাজনীতিবিদ।
  • আমেনা বেগম, রাজনীতিবিদ।
  • সিরাজুল ইসলাম, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ ও সাবেক সংসদ সদস্য।
  • আব্দুল মান্নান পঞ্চায়েত – বীর মুক্তিযোদ্ধা
  • সাংবাদিক শফিকুর রহমান, সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদ।
  • রেজাউল করিম, ফুটবলার ও বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক।
  • প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাসুম ইকবাল, ডীন, ব্যবসায় ও উদ্যোক্তাবৃত্তি অনুষদ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।
  • রিয়াদুল হাসান :ফুটবল খেলোয়ার,বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল
  • মাহমুদুল হাসান জয় ক্রিকেটার ও বিশ্বকাপ জয়ী অনূর্ধ্ব ১৯ দলের সদস্য।
  • শামীম হোসেন ক্রিকেটার ও বিশ্বকাপ জয়ী অনূর্ধ্ব ১৯ দলের সদস্য৷
  • রিফাত কান্তি সেন- ফিচার লেখক/ গণমাধ্যমকর্মী
  • সুলেমান খান:সুচিকিৎসক।
  • প্রয়াতঃ দ্বিজেন্দ্র লাল মিত্র- সাবেক ভলিবল খেলোয়াড়
  • আব্দুস শহীদ নাসিম – বিশিষ্ট লেখক

Related Articles

Back to top button