Uncategorized

রমজান নিয়ে উক্তি ও বাণী 2022

পবিত্র মাহে রমজান 12 মাসের মধ্যে একটি শ্রেষ্ঠ মাস। আল্লাহর ধর্মপ্রাণ মুসলমানগন পবিত্র রমজান মাসে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য রোযা পালন করেন। এই রমজান মাসের অনেকেই রমজানের উক্তি ও বাণী অনুসন্ধান করে থাকেন। যারা রমজানের গুরুত্বপূর্ণ ও শ্রেষ্ঠ উক্তি ও বাণী অনুসন্ধান করেন তাদের জন্য আমরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও শ্রেষ্ঠ বাণী সংগ্রহ করেছি এবং আমাদের ওয়েবসাইটে সংযুক্ত করেছি।

আপনি যদি চান এই সকল বাণী ও উক্তি রমজানের আপনার ধর্মপ্রাণ মুসলমান ভাইকে শেয়ার করতে পারেন। এই সকল উক্তি ও বাণী আপনি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে পারেন যাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানগন রমজানের গুরুত্ব উপলব্ধি করতে পারেন। তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য শ্রেষ্ঠ ও গুরুত্বপূর্ণ রমজানের বাণী আমাদের সাইটে সঙ্গে যুক্ত করেছি যাবে এখান থেকে সহজেই সংগ্রহ ও ডাউনলোড করতে পারবেন।

আসুন যারা রমজানের উক্তি ও বাণী অনুসন্ধান করেন সংরক্ষণের জন্য তাদের উদ্দেশ্যে আমরা রমজানের সকল শ্রেষ্ঠ বাণী ও উক্তি এখানে সংযুক্ত করেছি। সুতরাং আপনি বাণী গুলো সংরক্ষন যে কোন মুসলমানকে শুভেচ্ছা জানাতে পারেন বা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে সকলকে রমজানের গুরুত্ব উপলব্ধি করার সুযোগ করে দিতে পারেন।

রমজান নিয়ে সেরা উক্তি

রমজান ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ মাস। এই মাসে আল্লাহ পবিত্র কোরআন নাজিল করেছিলেন এবং মুসলমানদের জন্য রোযা ফরয করে দিয়েছেন। এজন্য প্রতিবছর ধর্মপ্রাণ মুসলমান মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য রোযা পালন করে থাকেন। এই রমজানের মজা ও গুরুত্ব অপরকে শেয়ার করার জন্য অনেকে রমজানের উক্তি অনলাইনে অনুসন্ধান করেন এবং সংগ্রহ করে ধর্মপ্রাণ ভাইকে শেয়ার করতে চান। সুতরাং যারা রমজানের উক্তি অন্য মুসলমানকে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করতে চান তাদের জন্য নিচের উক্তিগুলো আমরা প্রদান করেছি.

  1. হে ঈমানদারগণ, তোমাদের উপর রোজা ফরজ করা হয়েছে। যেমন ফরজ করা হয়েছিলো তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর । যেন তোমরা পরহেযগারী অর্জন করতে পার।-আল কুরআন
  2. নামাজ পড়, রোজা রাখ, কলমা পড় ভাই, তোর আখেরের কাজ করে নে সময় যে আর নাই-কাজী নজরুল ইসলাম
  3. হে মুমিনগণ! তোমাদের জন্য সিয়াম ফরজ করা হল যেমন ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তীদের উপর যেন তোমরা মুত্তাকী হতে পার -(আল বাকারাহ্ঃ ১৮৩)
  4. সিয়ামের রাতে তোমাদের জন্য তোমাদের স্ত্রীদের নিকট গমন হালাল করা হয়েছে তারা তোমাদের জন্য পরিচ্ছদ এবং তোমরা তাদের জন্য পরিচ্ছদ-(আল বাকারাহঃ ১৮৭)
  5.  সাহল ইবনু সা দ (রাঃ) হতে বর্ণিত যে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ লোকেরা যতদিন শীঘ্র ইফতার করবে ততদিন তারা কল্যাণের উপর থাকবে -হাদিস নং – ১৯৫৭
  6. সাহল (রাঃ) হতে বর্ণিত নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ জান্নাতে রাইয়্যান নামক একটি দরজা আছে এ দরজা দিয়ে কিয়ামতের দিন সওম পালনকারীরাই প্রবেশ করবে তাদের ব্যতীত আর কেউ এ দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না -(হাদিস নং – ১৮৯৬)
  7.  সালমা ইবনু আকওয়া (রহ ) হতে বর্ণিত যে আশূরার দিন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এক ব্যক্তিকে এ বলে লোকদের মধ্যে ঘোষণা দেয়ার জন্য পাঠালেন যে যে ব্যক্তি খেয়ে ফেলেছে সে যেন পূর্ণ করে নেয় অথবা বলেছেন সে যেন সওম আদায় করে নেয় আর যে এখনো খায়নি সে যেন আর না খায় –(হাদিস নং – ১৯২৪)
  8. রোজার সর্বশেষ রাত্রে আল্লাহ তার সকল বান্দাগণকে মাফ করে দিবেন-আল হাদিস
  9. রোজার একটি অন্যতম ফজিলত হলো রোজার মাধ্যমে আচার আচরণ ও চরিত্র সুন্দর হয়-আল হাদিস
  10.  রোজা হলো আত্মসংযম যা আমাদেরকে সকল মন্দ কাজ থেকে বিরত রাখে-আল হাদিস
  11. মানুষের কাছে গুনাহ মোচনের সবথেকে বড় মাধ্যম হচ্ছে রোজা-আল হাদিস
  12. উম্মু সালামাহ (রাযি ) হতে বর্ণিত তিনি বলেন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এক মাসের মত তাঁর স্ত্রীদের সাথে ঈলা করলেন ঊনত্রিশ দিন অতিবাহিত হওয়ার পর সকালে বা সন্ধ্যায় তিনি তাঁদের নিকট গমন করলেন তাঁকে জিজ্ঞেস করা হল আপনি তো এক মাস পর্যন্ত না আসার শপথ করেছিলেন? তিনি বললেন মাস ঊনত্রিশ দিনেও হয়ে থাকে –(হাদিস নং – ১৯১০)
  13. আল্লাহর আদেশে রোজাদার ব্যাক্তিদের জন্য প্রতিদিন জান্নাতকে সজ্জিত করা হয়-আল হাদিস
  14.  আয়িশাহ্ (রাযি ) হতে বর্ণিত যে আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন: সওমের কাযা যিম্মায় রেখে যদি কোন ব্যক্তি মারা যায় তাহলে তার অভিভাবক তার পক্ষ হতে সওম আদায় করবে –(হাদিস নং – ১৯৫২)

রমজান নিয়ে শ্রেষ্ঠ বাণী 2022

আপনি কি রমজানের শ্রেষ্ঠ বাণী অনুসন্ধান করছেন?. যদি বাণীগুলো অনুসন্ধান করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য আমরা রমজানের শ্রেষ্ঠ বাড়িগুলো সংগ্রহ করেছি এবং আমাদের এই নিবন্ধের সংযুক্ত করেছে. আসুন রমজানের সেই শ্রেষ্ঠ বাণী গুলি এখান থেকে সংগ্রহ করুন এবং অপরকে শেয়ার করুন.

রমজান আল্লাহর ইবাদতের

এক অভূতপূর্ব ট্রেনিং স্বরুপ

– আল হাদিস

 

রমজান আল্লাহ ও বান্দার মাঝে নিতান্ত

গোপন ইবাদত তাই এর মাধ্যমে

আল্লাহ ও বান্দার মাঝে সম্পর্ক দৃঢ়তর হয়

– আল হাদিস

 

রমজান সামাজিক সহমর্মিতা

ও ভ্রাতৃত্ব বোধ সৃষ্টি করে

– আল হাদিস

 

রোজা মানুষকে

আখেরাত মুখী করে

– আল হাদিস

 

রোজার মাধ্যমে

আচার–আচরণ ও চরিত্র সুন্দর হয়

– আল হাদিস

 

রোজার পুরষ্কার আল্লাহ নিজ

হাতে প্রদান করবেন

– আল হাদিস

 

রোজা কিয়ামতের দিন মুমিন

ব্যক্তির জন্য শুপারিশকারী হবে

– আল হাদিস

 

রমজান গুনাহ মোচনের

অন্যতম মাধ্যম

– আল হাদিস

ইফতার পর্যন্ত রোজাদারের জন্য ফেরেশতারা দোয়া করবেন-আল হাদিস

সে ব্যক্তি মুমিন নয়, যে নিজে তৃপ্তি সহকারে আহার করে, অথচ তার প্রতিবেশী অনাহারে থাকে। —- আল হাদিস

রমজান জান্নাতে যাওয়ার উৎকৃষ্টতম উপায় এবং রাইয়ান নামক বিশেষ দরজা দিয়ে জান্নাতে প্রবেশের সুযোগ। —– আল হাদিস।

ফজরের নামাজ বিহীন, একটি সকাল কখনোই শুভ হতে পারে না।

পৃথিবীতে সেই সবচেয়ে কৃপণ, যে মুসলমান অন্য মুসলমানকে সালাম দিতে কৃপণতা করে। —– হযরত মোহাম্মদ ( সাঃ )

শিশুরা যখন কথা বলতে শুরু করে, তখন তাকে কালেমা শিক্ষা দাও। —- হযরত মোহাম্মদ ( সাঃ )

আল্লাহ তওবাকারীদের কে ভালোবাসেন এবং যারা পবিত্র থাকে তাদেরও ভালোবাসেন। ( সূরা বাকারা )

যে আমার সুন্নতকে ভালোবাসলে, সে আমাকে ভালোবাসলো। —- হযরত মোহাম্মদ ( সঃ )

রাগ মানুষের ঈমানকে নষ্ট করে। হিংসা মানুষের নেক আমলকে ধ্বংস করে। আর মিথ্যা মানুষের হায়াত কমিয়ে দেয়। —- হযরত মোহাম্মদ ( সাঃ )

রােজাদারের মুখের দুর্গন্ধ আল্লাহর কাছে মেশকের চেয়ে বেশী ঘ্রাণযুক্ত।

আল হাদিস



রমজান এর রােজার পুরষ্কার,

আল্লাহ নিজ হাতে প্রদান করবেন!

-আল হাদিস




রােজা কিয়ামতের দিন

মুমিন ব্যক্তির জন্য

সুপারিশকারী হবে!

-আল হাদিস,




রােজার সর্বশেষ রাত্রে আল্লাহ তার সকল

বান্দাগণকে মাফ করে দিবেন।

আল হাদিস




রমজানের শেষ রাতে

সকল উম্মতকে মাফ করা হয়!

-আল হাদিস



রমজান! জান্নাতে যাওয়ার উৎকৃষ্টতম উপায় এবং

রাইয়ান নামক বিশেষ দরজা দিয়ে জান্নাতে প্রবেশের সুযােগ!

-আল হাদিস



নবীজি মুচকি হাসতেন।

মুচকি হাসি দেওয়া সুন্নত।


সহীহ বুখারী।

রমজান নিয়ে ছন্দ

 

রোদ বৃষ্টি ঝরের দিন,

সামনে আসছে রোজার দিন,

বাকি আছে আর কিছু দিন,

আগে থেকেই শপথ নিন,

রােজা রাখবেন ২৯/৩০দিন,

নামাজ পারবেন প্রতিদিন,

আল্লাহ আমাদের তৌফিক দিন, “আমীন”
৩০টি রোজা, ৩০টি সেহেরী,

৩০টি ইফতার, ৩০টি তারাবি।

হে আল্লাহ সকল মুসলমানদের সঠিকভাবেপালন করার তৌফিক দান করুন।
রহমত নিয়ে এলো মাহে রমজান,

বরকত নিয়ে এলো মাহে রমজান।
গোলাপে এতো সুগন্ধ কেন?

নবীজি এক ফোট। ঘাম মােবারক পড়েছিল তাই।
কখনো ব্যর্থ হলে সেজদায় পড়ে যাও,

সফলতার পথ আল্লাহই দেখাবেন।
সব সময় একটা কথা মনে রাখবেন।

আল্লাহর সিদ্ধান্ত আপনার ইচ্ছার থেকেও উত্তম।
১,২,৩ আসছে রােজার দিন

৪,৫,৬ রােজা রাখতে কিসের ভয়

৭,৮,৯ খারাপ কাজ আর নয়

১০,১১,১২ পাচ ওয়াক্ত নামায় পড়
সামনে আসছে রােজা,

হালকা কর গােনাহের বােঝা,

যদি কর পাপ, চেয়ে নাও মাফ।

এসাে নিয়ত করি,

আজ থেকে সবাই পাঁচওয়াক্ত নামাজ পড়ি
ভুলেও যেন ১টি রােজা তােমার বন্ধু!

না হয় কাযা ফকীর নয় তারাবীর

নামাযের পুণ্যের যেন হতে পারাে রাজা

হেসে খেলে ভুল করে হায়!

পেওনা ভুলের কঠিন সাজা!
আসলাে আবার রােজা

তাইতাে আমার নতুন করে

সােজা পথটি খোঁজা।
সিয়ামের মাস এলাে, আল্লাহকে বলি চলাে।


সব গােনাহ মাফ করাে রহমান তুমি বড়।
শান্তি পাবে সবাই তবে

৩০ দিনের সিয়াম, কুরআন হাসিস পড়ে

সবাই করাে নামাজ কায়েম।
গজব আর রহমত

একসাথে আসেনা,

গজবের পরই রহমত

আসে ইনশাআল্লাহ্,

সামনেই রমজান মাস
ক এক করে যাচ্ছে চলে- ~মাহে রমযান ~কি করে

"দিবাে আমি- ~তার প্রতিদান~ ~ক্ষমার আশায় আজও

আমি- ~তুলি দুই হাত~ ~কবুল করাে আল্লাহ তুমি-

আমার মােনাজাত!
সিজদা দাও গুনাহ মুছে দেওয়ার

দায়িত্ব আল্লাহর

I Wish..!O

কোন এক রমজান মাসে রােজা রাখা অবস্থায়

যেন আমার মৃত্যু হয়..!

মুমলমান হতে হবে সব সময়ের জন্য

শুধু রমজান মাসের জন্য নয়

হে আল্লাহ সবাইকে ঘুম থেকে উঠে রােজা রাখার

- তৌফিক দান করুন.

- আমিন

Related Articles

Back to top button